সোমবার, ১৩ আগস্ট, ২০১৮

গল্পপাঠ।। আষাঢ়-শ্রাবণ ।। ১৪২৫।। জুলাই-আগস্ট ২০১৮।।। সংখ্যা ৬২

চলে গেলেন কথাসাহিত্যিক রমাপদ চৌধুরী। তিনি অসামান্য ছোটো গল্পকার ছিলেন। স্বল্পায়তনের বেশ কিছু স্বার্থক উপন্যাস রয়েছে। তিনিই বাংলা সাহিত্যের একমাত্র লেখক যিনি লেখার যথেষ্ট বয়স থাকা সত্বেও ঘোষণা দিয়ে লেখা থেকে অবসর নিয়েছিলেন। তিনি থামতে জানতেন।

এর পরপরই চলে গেলেন কথাসাহিত্যিক আফসার আমেদ। তিনি লিখতেন নিম্নবর্গ আর মুসলমানজীবনের ভাষ্য। তাদের জীবন যন্ত্রণা, কাহিনী ও সমাজের অন্দর মহলের কথা। মৃত্যুর কিছুদিন আগে পেয়েছিলেন একাদেমি পুরস্কার।

প্রয়াত রমাপদ চৌধুরী ও আফসার আমেদকে শ্রদ্ধা জানিয়ে বেশ কয়েকটি লেখা প্রকাশিত হলো।

এই আগস্ট মাসে চলে গেলেন নোবেল জয়ী কথাসাহিত্যিক বিদ্যাধর সূর্যপ্রসাদ নাইপল। এঁদের সবার প্রতি গল্পপাঠের শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। তাদের লেখা পড়ুন। 
অনুবাদ ঃ মোজাফফর হোসেন
----------------------------------------
সাঁঝবেলার নাইপল
গৌতম চক্রবর্তী

বিশ্বসাহিত্য/ অনুবাদ গল্প
বাংলা গল্পকে বিশ্বমানের করার জন্য বিশ্বসাহিত্যের সঙ্গে গভীরভাবে সংযোগ রক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই। সেজন্য গল্পপাঠ টিম এ সংখ্যায় ৮টি অনুবাদ গল্প প্রকাশ করেছে।  এই গল্পের মধ্যে প্রয়াত মার্কেজ আছেন, আবার সদ্য তরুণ গল্পকার গো নাথান আছেন। প্রতিটি গল্পই পড়বেন আশা করছি।
অনুবাদক : ফজল হাসান, দেব ব্যানার্জি, এমদাদ রহমান ও মৌসুমী কাদের
রোখসানা চৌধুরী, আনিসুজ্জামান, অনামিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিষ্ণুপ্রিয়া চৌধুরী ও কণিষ্ক ভট্টাচার্য  

গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেসের গল্প : 
আলো তো জলের মতো 
অনুবাদ : এমদাদ রহমান

'আলো তো জলের মতো' গল্পটিতে অবিরল ধারায় আলোর নির্গমনের ব্যাপারটি পড়তে গেলেই আশ্চর্য হতে হয়। গল্পটিতে দেখা যায় জ্বলন্ত বাল্ব ভেঙে ফেললে গলগলিয়ে বের হতে থাকে আলো যেভাবে বাথরুমের ট্যাপ খুললে বের হতে থাকে জলধারা। বিস্তারিত>>

হোর্হে লুইস বোর্হেসের গল্প : চাকতি
অনুবাদ : আনিসুজ্জামান

আর্হেন্তিনার কবি ও কথাসাহিত্যিক হোর্হে লুইস বোর্হেসের জন্ম ১৮৯৯ সালে বুয়েনোস আইরেসে। বনেদি পরিবারে জন্ম নেয়া এই লেখক সারা পৃথিবীর পাঠকদের কাছে তার অতুলনীয় গল্পগুলোর জন্য পরিচিত। কথাসাহিত্যে মৌলিকতা ও সুক্ষ্ণ শিল্পকুশলতা–এই দুই অনন্য অর্জন তাকে লেখকদের লেখক হওয়ার কিংবদন্তিতে পরিণত করেছে। মূল থেকে অনূদিত এই গল্পটি তিনি রচনা করেছিলেন যখন তিনি পুরোপুরি দৃষ্টিশক্তিহীন।
বিস্তারিত পড়ুন>>


রাশিয়ান গল্প
নকশী রুমাল
মূল গল্প : নকশী রুমাল
অনুবাদ : বিষ্ণুপ্রিয়া চৌধুরী

আপনি যদি কখনো গ্রামের রাস্তায় গাড়ি না চেপে থাকেন তাহলে সে বিষয়ে আপনাকে বলে কোনো লাভ নেই। কারণ আপনি ব্যাপারটা কিসুই বুঝবেন না। আর যদি সে অভিজ্ঞতা আপনার হয়ে থাকে তাহলে ও কথা আপনাকে স্মরণ করিয়ে পাপের ভাগী আমি হতে চাই না।
বিস্তারিত পড়ুন>>


ফিলিপাইনের গল্প :
 ম্যাকটানের সেই ভবিষ্যবক্তা
মূল গল্প : গো নাথান
অনুবাদ : অনামিকা বন্দ্যোপাধ্যায়

তিনি হলেন এককথায় বলতে গেলে- -এক অন্ধ ভবিষ্যতবক্তা। আর তার আছে এক মালিশ-কারখানা। নাম তার 'আনচেইন্ড মেলোডি মাসাজ পার্লার'। সেখানে তিনি করেন মালিশের কাজ।
বিস্তারিত পড়ুন>>


রাভি নদী পেরিয়ে
মূল গল্প  গুলজার
অনুবাদ ফজল হাসান
আমি জানি না দরশান সিং এখনো কেন পাগল হয়ে যায়নি । বাড়িতে তার বাবা মারা গেছে, গুরুদওয়ারার ধ্বংসস্তুপের মাঝে তার মা হারিয়ে গেছে এবং শাহনি যমজ ছেলের জন্ম দিয়েছে । সে রীতিমতো দোটানায় পড়ে গেছে । সে বুঝতে পারেনি আসলে তার হাসা উচিত, নাকি কাঁদা উচিত । ভাগ্য তার সঙ্গে প্রতারণা করেছে – এক হাতে দিয়ে অন্য হাতে নিয়ে যায় ।   বিস্তারত পড়ুন>>
এঞ্জেলের লণ্ড্রী
মূল গল্প : লুসিয়া বার্লিন
অনুবাদ : দেবাশীষ বন্দ্যোপাধ্যায়

ছর খানেক হবে, কিছুটা অদ্ভুত ভাবেই দেখা হতো আমাদের। প্রায়ই । সব দিন যে একই সময়ে তেমনটা নয় । কোনদিন হয়তো বেলা গড়িয়ে সন্ধ্যে নেমেছে । সোমবার । রাস্তার আলোগুলো অন্ধকারের মাপটা ঠিক বুঝতে না পেরে বেশ বিভ্রান্তির সঙ্গে দপদপ করে জ্বলে উঠে আবার নিভে যাচ্ছে ।  বিস্তারত পড়ুন>>

কাইল ম্যাকার্থি'র গল্প : গাঙচিল
অনুবাদ: রোখসানা চৌধুরী

যৌন নিপীড়ন বন্ধ করার শ্লোগান সম্বলিত অনুুষ্ঠানের আয়োজনটি ছিল একটি জাদুঘরে। সেখানে খড়কুটো ভরা মৃত প্রাণীদের কুশপুত্তলিকা সাজিয়ে রাখা ছিল। এই সব প্রাণীদের যারা মেরে ফেলেছিল তারাও আজ আর জীবিত নেই, এটা নিশ্চিত। অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিলেন একজন অভিনেত্রী। 

হ্যাল ওয়ালিং'র গল্প ' তুমি এখনও কিছু জেতো নি'
অনুবাদ : মৌসুমী কাদের

হ্যাল ওয়ালিং কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়া উপরাজ্যের ভিক্টোরিয়াতে বাস করেন। তিনি কানাডার একজন উঠতি গল্পকার। বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি উত্তর আমেরিকার শ্রেষ্ঠ সাহিত্য পত্রিকাগুলোতে লেখালেখি করছেন এবং একটি উপন্যাস লেখাতেও হাত দিয়েছেন। গত মার্চ ৬, ২০১৮ তে আমেরিকার শর্ট ফিকশন অনলাইন ব্লগে তার এই গল্পটি ছাপা হয়। তার লেখার সরল ভাষা, বিষয় বিবেচনা, স্মৃতি ও অন্তর্গত বোধ ও প্রকৃতি বর্ণনা তাকে বিশিষ্ট করে তুলেছে।
বিস্তারিত পড়ুন>>


হাড়িকাঠের মেয়েটা
মূল গল্প :  ক্যাথলিন কলিন্স
অনুবাদ : কণিষ্ক ভট্টাচার্য 
আফ্রিকান আমেরিকান গল্পকার, কবি, নাট্যকার,চলচ্চিত্রকার, নাগরিক অধিকার আন্দোলনের নেত্রী ও শিক্ষাবিদ ক্যাথলিন কলিন্স।
থাকেন আমেরিকার নিউ জার্সিতে। 
হাড়িকাঠের মেয়েটি গল্পটি প্রকাশিত হয়েছে দি প্যারিস রিভিউ পত্রিকার ২০১৮ সালের বসন্ত সংখ্যায়। জন্ম ১৯৪২ সালে। মৃত্যু ১৯৮৮ সালে। বিস্তারিত>>


আলবেয়ার কাম্যুর সাক্ষাৎকার
অনুবাদ : এমদাদ রহমান
এই সাক্ষাৎকারটি নেন লেখক জে. সি. ব্রিসভেল, তার মৃত্যুর আগের বছর, ১৯৫৯য়। পরবর্তীতে, এটা সহ মোট ৩টি সাক্ষাৎকার গ্রন্থভুক্ত হয় কামু'র- 'লিরিক্যাল এন্ড ক্রিটিক্যাল এসেজ' বইটিতে; বইয়ের লেখাগুলি অনুবাদ ও সম্পাদনা করেন ফিলিপ থডি এবং এলেন ক্যানোরি কেনেডি, নিউ ইয়র্কের ভিনটেজ বুকস থেকে বইটি প্রকাশিত হয় ১৯৭০-এ।
বিস্তারিত>>

আনসারউদ্দিনের গল্প : পাকা দেখা
শ্বশুরমশায় আমাকে বলেছিলেন, একটা ভালমতো মেয়ে দেখতে। দেখতে শুনতে ভাল, লম্বা, ফর্সা, একটু লেখাপড়া জানা। বলা বাহুল্য এরকম মেয়েকে পাত্রপক্ষ যাঞ্চা করবে। এবং এটাই স্বাভাবিক। শ্বশুরমশাইয়ের আমিই বড় জামাই। তিনিই আমার উপর এহেন গুরুদায়িত্ব ন্যস্ত করলেন। অন্য কোন কাজের কথা বললে ঘাড় মাথা এক করে সম্মতি জানাতে আপত্তি ছিল না।  বিস্তারিত>>

ধারাবাহিক বিজ্ঞান কল্পকাহিনী :আন্তারেস - তৃতীয় অধ্যায়
দীপেন ভট্টাচার্য
সেই বইয়ের এই লাইনক’টি আমার মাথায় সবসময় ঘুরত - “অনেকে মনে করে মহাকাশ যাত্রার মত বড় অ্যাডভেঞ্চার আর হতে পারে না। তারা মনে করে নিকষ কালো অন্ধকারে অভিযানের সাথে সবসময় একটা রোমাঞ্চকর সঙ্গীত বাজতে থাকে যা কিনা সেই যাত্রাকে অর্থময় করে, তাকে প্রাণপূর্ণ করে।কিন্তু অনন্ত অসীম মহাকাশের নিঃসঙ্গতা নিতান্তই অনুর্বর, সেই প্রকৃতি ক্ষমাহীন, সে সঙ্গীত বুঝতে অক্ষম।" 
বিস্তারিত পড়ুন>>

অনামিকাস জার্নাল 
 গল্প / ছোট গল্প 


ঝড়েশ্বর চট্টোপাধ্যায়-এর গল্প :
জ্যোৎস্নায় মানব-মানবী

ছিটকিনিটা আলগা করে। জানালা খুলতেই খুব আস্তে গড়িয়ে গড়িয়ে ঢোকে জ্যোৎস্না। জানালার সোজাসুজি ঘরের ভিতর অনেকখানি জায়গা সাদা। অসিত এই প্রথম নিজের ঘরে দাঁড়িয়ে জ্যোৎস্না দেখছে : ও পাশটা একদম দুধ-ভেজা ফর্সা। ঘাসের ডগায় চিকমিকি। গাছাগাছালির পাতা টলটলে। দূরে দু-একটা সদ্য নির্মিত ঘর বাড়ির কার্নিশ ধুয়ে যাচ্ছে। বিস্তারিত পড়ুন>>

আনোয়ার শাহাদাতের গল্প :
কদমফুলতলীর হাট

সপ্তাহান্তরে হাটে কখনো ঘন বরিষণ দিনগুলোতে আমার বাবা কচু বা কচুশাক বিক্রি করত এক সময়। এ নিয়ে তার একটা বিরাগ ও মনকষ্ট থাকতে পারে বলে ধারণা করি, আবার তা নাও হতে পারে, হয়তো কোন অনুভূতিই ছিলনা সে নিয়ে। হাটে যখন তাকে কেউ এই বলে ডাকত যে ওই ‘কচু-ওয়ালা’, বাবা তখন বলত, “আরে কচু-ওয়ালা কও কেয়া, চোখে দ্যাখও না এইগুলা যে কচুশাক, কচু না, কচুরশাক”।



শামিম আহমেদের গল্প : কবর
এ সময়ের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কথাসাহিত্যিক শামিম আহমেদ। সাত আসমান উপন্যাস সাত চল্লিশের দেশভাগের সময়কার আখ্যানে রচিত। সেখানে ব্যবহার করেছেন ম্যাজিক রিয়ালিজমের সার্থক কৌশল। যে ঘটিনাটি সরাসরি বলা যায় না, কিন্তু বলাটা জরুরি হয়ে ওঠে, তখন কিংবদন্তি, পুরানকাহিনী আর ম্যাজিকের মাধ্যমে সে ঘটনাটি হয়ে ওঠে আকর্ষণীয় ও গ্রহণযোগ্য। কবর গল্পটিতেও শামিম দুটি হত্যাকাণ্ডের উন্মোচন করেছেন এই ম্যাজিক ব্যবহার করে।
বিস্তারিত পড়ুন>>

মাহবুব লীলেনের গল্প : চলতি আগামী

গল্পটি একটি খুনের ঘটনা। ঠিক ঘটনাও বলা যাবে না। একজন লোককে দা দিয়ে কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলছে। সেগুলো ভরে একটি কুরিয়ার সার্ভিস অফিসে ফেলে রেখে গেছে। পুলিশ টুকরোগুলো নিয়ে এসেছে লাশকাটা ঘরে। ডোম লাশের সুরত হাল করতে করতে টুকরোগুলো সেলাই করে দেশটাকে আবার জুড়ে ফেলেছে। এইটুকুই গল্প।  বিস্তারিত পড়ুন>>

মৃত শহর থেকে
সেলিম জাহান
ছবিটির মধ্যে কি একটা যেন লুকিয়ে ছিল। ধরতে পারছিলাম না সে’টি কি, কিন্তু অনুভব করতে পারছিলাম। বুঝতে পারছিলাম পুরো ছবিটির মধ্যে একটা শূন্যতা, একটা রিক্ততা, একটা হাহাকার যেন কথা ক’য়ে উঠছিলো।
বিস্তারিত পড়ুন>>
আহামাদ মোস্তফা কামালের গল্প : ভয়

তখন সন্ধ্যা নামছিল। এ-তো নতুন কিছু নয়; সন্ধ্যা তো প্রতিদিনই আসে, নিয়মের ব্যতিক্রম না ঘটিয়েই আসে, শুধু এই শহরেই নয়, আসে পৃথিবীর সব শহরে, সব জনপদে; তবু সেদিনের সন্ধ্যাটা ছিল অন্যরকম। কয়েকদিন ধরে সূর্যটা যেন আগুন ঝরাচ্ছে-- রোদ নয়, যেন অগ্নিস্ফুলিঙ্গ এসে লাগলো গায়ে-- এরকম মনে হয় বাইরে বেরুলে।
বিস্তারিত পড়ুন>>

.. আমার চোখ জ্বলছে। চোখ খুলে তাকাতে ইচ্ছে করছে না। কিন্তু সিএনজি অটোরিকশার সামনে ড্রাইভারের বাম পাশে বসে না তাকিয়ে উপায় আছে! চোখ বন্ধ করে রাখি কীভাবে? রাস্তা সরু কিন্তু সমতল। জানি একটুক্ষণ চোখ বন্ধ করে রাখলেই ঝিমুনি আসবে।  এখন ফিরে যাচ্ছি। বিস্তারিত পড়ুন>>

কয়েকটি গল্প
কণিষ্ক ভট্টাচার্য, স্বকৃত নোমান, সুদেষ্ণা দাশগুপ্ত, মল্লিকা ধর, আহমেদ খান হীরক
সাত্যকি হালদার, সুমী সকানদার, দীপক দাস, হাসান আহমদ
--------------------------------------------------------------------------
সাত্যকি হালদারের গল্প ঃ ভারতবর্ষ

গল্পপাঠে নতুন গল্পকার

সাধন দাসের গল্প : গুজব

তখনও সাইকেলের রডে বসার বয়স। সকাল বিকেল ফাঁক পেলেই মাঠে নেমে পড়ি। লড়াই লড়াই খেলি। ভিজে পুড়ে অবাধ্য জ্বরও হয়। সেরে ওঠার মুখে, বাবার সাইকেলে শহরে যাচ্ছি, ডাক্তারকাকুর কাছে। চ্যাপ্টাশিশিতে লাল কষাই মিক্সার, আর খলনুড়িতে মেড়ে সাদা পুরিয়া, মানে স্কুল যেতে হবে না।
বিস্তারিত পড়ুন>>
গল্পের শৈলী / বই নিয়ে আলাপ

ছোটগল্পে বাস্তবতা বনাম নির্মিতি
মোজাফ্‌ফর হোসেন

শুরুটা করি নিজের অভিজ্ঞতা দিয়ে। গল্প প্রকাশিত হওয়ার পর দেখেছি, যে গল্পটা আমার নির্মিতি, মানে পুরোটাই কল্পনাপ্রসূত, পাঠক পড়ে বললেন, ‘বাহ! খুব বাস্তবসম্মত। ঘটনাটা চোখের সামনে ভেসে ওঠে।’ আর যে গল্পটা আমার সম্পূর্ণ নির্মিতি না, অর্থাৎ জানা বা যাপিত জীবনের ঘটনা অবলম্বনে লেখা, সেটি পড়ে হয়তো পাঠক বললেন, ‘অতি নাটকীয় মনে হলো। মনে হচ্ছে জোর করে বানানো! বাস্তবের অতিরঞ্জন।’   বিস্তারিত পড়ুন>>

বই নিয়ে আলাপ
১. ত্রুফোর লেখা বাংলা গল্প : সর্বজিৎ সরকার
শমীক ঘোষের গল্পের বই-- এলভিস ও অমলা সুন্দরী
-------------------------------------------------
সর্বাণী বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুটি উপন্যাস--
আলোচক : বিশ্বজিৎ পাণ্ডা
--------------------------------------------------
আলোচক : জয়দীপ দে
পাঠপ্রতিক্রিয়া
----------------------
কুলদা রায়ের গল্পের বই 'বৃষ্টিচিহ্নিত জল'
মৈত্রেয়ী সরকার

 ধারাবাহিক উপন্যাস :
মূল : মার্গারেট মিচেল
------------------------------------------
যে দিন ভেসে গেছে 
১.ষষ্ঠ অধ্যায়
২.সপ্তম অধ্যায়-------------------------------------------
অনুবাদ : উৎপল দাশগুপ্ত




কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন