শনিবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০২০

গল্পপাঠ।।পৌষ-মাঘ।। ১৪২৬।। জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি।। ২০২০।। সংখ্যা ৭০

গল্পকার হলেন একজন আর্টিস্ট। তিনি একজন ভাস্কর। ভাস্করের মতই পাথর কেটে কেটে, তার মধ্য থেকে নিরলস শ্রম, মেধা, অধ্যবসায়, কল্পনা, নতুন দৃষ্টিভঙ্গী, সৃজনশীলতা ব্যয় করে একটি অনুপম ভাস্কর্য তিনি সৃষ্টি করবেন। এই ভাস্কর্য শুধু গল্প প্রকাশ করে নিজের নামের সঙ্গে গল্পকার শব্দটি যোগ করার জন্য নয়, নানা পুরস্কার-সম্মাননা-পদ-পদবীর অভিলাষের জন্য নয়। এই ভাস্কর্য নতুন চিন্তার, অভিনবত্বের, বিশ্বমানের।

কম লেখা হোক, কিন্তু শ্রেষ্ঠ গল্পটি লিখবেন আমাদের গল্পকার, তাঁর সময়কে ব্যয় করবেন না সাধারণ চর্বিত চর্বনে, অপচয় করবেন না পাঠকের মূল্যবান সময়। বিশ্বসাহিত্যের সঙ্গে পাল্লা দেবেন। এই কথাগুলো ভেবেই আপনার গল্পটি লিখবেন, এই কথাগুলো ভেবেই আপনার গল্পটি পাঠাবেন। এই আমাদের আশা। এটাই গল্পপাঠের আশা।
বিশেষ আয়োজন : ক্রোড়পত্র
সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের কথনশৈলী, ভাষা আর গল্পকাঠামোর নতুনত্ব প্রথাগত গল্প থেকে আলাদা । তাঁর লেখা অনেকটাই অপ্রচলিত ও নিরীক্ষাধর্মী। কেউ কেউ তাঁকে উত্তর আধুনিক লেখক হিসেবে শ্রেণিকরণ করেন। অ্যাকাডেমিক প্রবন্ধ ছাড়াও তিনি বাংলা ও ইংরেজীতে সমাজ, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও শিল্প বিষয়ে অসংখ্য প্রবন্ধ লিখেছেন। আশির দশকের শুরু থেকে ‘সংবাদ’ এর সাহিত্য বিভাগে তিনি ‘অলস দিনের হাওয়া’ নামে নিয়মিত কলাম লিখে বিপুল পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছিলেন। গল্প, উপন্যাস ও নাটক লেখা ছাড়াও তিনি প্রচুর সাহিত্য অনুবাদ করেছেন। এমনকি চিত্রকলার উপরও তাঁর লেখা রয়েছে। বাংলা একাডেমী পুরষ্কারপ্রাপ্ত এই গল্পকারকে নিয়ে এ সংখ্যার গল্পপাঠে রয়েছে বিশেষ আয়োজন। সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের  প্রতিকৃতি এঁকে দিয়েছেন শিল্পী তাজুল ইমাম। 

এই পুরো আয়োজনটি  স্বতন্ত্রভাবেও  প্রকাশ করা হলো। 
সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম'এর প্রবন্ধ :
মানুষ ও মিনোটর : লাতিন আমেরিকার উপন্যাস।

সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের সঙ্গে কুলদা রায়ের তিন বছর আগে ঘণ্টা দুয়েকের মতো আলাপ হয় নিউ ইয়র্কের হিলসাইড এভেনিউএ। সে আলাপের মধ্যে অধিকাংশটাই জুড়েই ছিল তাঁর লেখালেখি নিয়ে--লেখালেখির কলকব্জা নিয়ে। এ প্রসঙ্গে বাংলা ভাষার কয়েকজন লেখকের লেখা নিয়েও আলোচনা হয়। হয় বাংলা সাহিত্য ও বিশ্বসাহিত্যের বর্তমান ধারার লেখালেখি নিয়ে কথাবার্তা। সময় খুবই কম ছিল। সেজন্য আরো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে কথা হওয়ার সুযোগ কম ছিল। তবুও এটা একটি দীর্ঘ সাক্ষাৎকার। এবং লেখক ও মননশীল পাঠকের জন্য অতি প্রয়োজনীয় সাক্ষাৎকার। মূলত সৈয়দ মনজুরুল ইসলামই কথা বলে গেছেন। তাঁকে খুব বেশি প্রশ্ন করার দরকার হয়নি। কুলদা রায় মাঝে মাঝে সূত্রধরের কাজ করেছেন মাত্র।
কুলদা রায়
আরো দুটি সাক্ষাৎকার পত্রস্থ হলো--
 সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের সাক্ষাৎকার : স্বকৃত নোমান
অমর মিত্র
প্রবন্ধকার : পুরুষোত্তম সিংহ
সাগুফতা শারমীন তানিয়া 
সাগুফতা শারমীন তানিয়ার সহজাত লিখন ভঙ্গী আছে। জলের মত ঘুরে ঘুরে লেখেন। তাঁর লেখা ধ্বনিময় এবং চিত্রধর্মী। তাঁর আখ্যান বুদ্ধিদীপ্ত ও সরস। বাংলাদেশের প্রধান প্রধান পত্রিকায় তার লেখা প্রকাশিত হয়। পেশায় স্থাপত্যবিদ। থাকেন লন্ডনে। গল্পের পাশাপাশি উপন্যাসও লিখছেন। সেগুলো প্রশংসিত হয়েছে। সম্প্রতি পেয়েছেন বাংলা একা্ডেমির সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ সাহিত্য পুরস্কার।

অনুবাদক ও গল্পকার প্যারিস থেকে এমদাদ রহমান সম্প্রতি মেসেঞ্জারে লিখে লিখে একটি দীর্ঘ সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সাগুফতা শারমীন তানিয়ার। এই সাক্ষাৎকার শুরু হয়েছিল বাংলা একাডেমির পুরস্কারপ্রাপ্তির আগেই। এক মাসেরও বেশি সময় লেগেছে।

সাগুফতা শারমীন তানিয়ার সাহিত্যপাঠ ও লেখার কৌশল  এই আলাপচারিতায় অনবদ্যভাবে প্রকাশিত হয়েছে। সঙ্গে থাকছে সাগুফতা শারমীন তানিয়ার দুটি গল্প ও অগ্রজ কথাসাহিত্যিক আখতারুজ্জামান ইলিয়াসকে নিয়ে একটি প্রবন্ধ।
 
দি আর্ট অফ ফিকশন :  সাগুফতা শারমীন তানিয়া'র সাক্ষাৎকার
সাক্ষাৎকার গ্রহণকারী : এমদাদ রহমান

আখতারুজ্জামান ইলিয়াসকে নিয়ে গদ্য : ইল্যুসিভ ইলিয়াস

সাগুফতা শারমীন তানিয়ার গল্প ঃ মধুবাতা ঋতায়তে

সাগুফতা শারমীন তানিয়ার গল্প : একটি পার্শ্বচরিত্রের গল্প

মাহবুব লীলেন'এর সাক্ষাৎকার : পাঠ ও পাঠকৃতি

স্বকৃত নোমান' এর সাক্ষাৎকার : পাঠ ও পাঠকৃতি

অমর মিত্রের গল্প : ডকুমেন্ট
স্বপ্নময় চক্রবর্তীর গল্প : উদ্ভাসন কাব্য

দীপেন ভট্টাচার্যের বৈজ্ঞান কল্প-গল্প
ক্যামলেট-- একটি দূর সময়ের কাহিনী 




ফাতেমা আবেদিন নাজলা পেশায় সাংবাদিক। নেশায় গল্পকার। রন্ধনশৈলীতে তাঁর অনেক সুখ্যাতি। এই প্রথম লিখলেন গল্পপাঠে--
ফাতেমা আবেদিন নাজলা'র গল্প
মিথ্যা তুমি দশ পিঁপড়া



কামরুন নাহার শীলা একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। লেখেন গল্প। তার গল্পভাষার অন্যরকম। তিনি সম্প্রতি কালি ও কলম সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন। শীলা গল্পপাঠে প্রথম গল্প দিয়েছেন । গল্পের সঙ্গে গল্পটি নির্মাণপর্ব নিয়ে ছোট্ট সাক্ষাৎকার পড়ুন--

কামরুন নাহার শীলার গল্প 
দরজার ভিতর থেকে

অনুবাদ গল্প 
হারুকি মুরাকামির গল্প : ক্রিম
ভাষান্তর : কুলদা রায়

 সিলভিয়া প্লাথ মার্কিন কবি হিসেবেই পরিচিত। ্তিনি সুইসাইড করেছিলেন। কবিতার পাশাপাশি তিনি বেশ কিছু গল্প ও উপন্যাসও লুখেছেন। সেগুলো বাংলা ভাষায় অনুবাদ হয়নি। রোখসানা চৌধুরীর অনুবাদে পড়ুন একটি গল্প--

সিলভিয়া প্লাথের গল্প : গৃহবধুদের গল্প
অনুবাদ : রোখসানা চৌধুরী

আর্জেন্টিনার কবি, গল্পকার ও শিল্পী সিলভিনা ওকাম্পো জন্ম ১৯০৩ সালে। মৃত্যু ১৯৯৩ সালে। তাঁর লেখাকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মনে করতেন হোর্হে লুইস বোরহেস। মূল স্প্যানিস ভাষা থেকে অনুবাদ করেছেন জয়া চৌধুরী। 
সিলভিনা ওকাম্পোর গল্প :
কাচে লেপটে থাকা মুখ
জয়া চৌধুরীর অনুবাদ


মোজাম্বিকের গল্প
মিয়া কুটোর গল্প : ঈশ্বরের পাখিসব
অনুবাদ : এলহাম হোসেন

নাহার তৃণার অনুবাদে পোলিশ ও রুশ গল্প
ওলগা তোকারচুক 'এর গল্প 
লেখকের সাথে একটি সন্ধ্যা

নিকোলাই গোগোলের গল্প : নাক


আর্নেস্ট হেমিংওয়ে'র গল্প 
ক্যানারি পাখিটা একজনের জন্য
অনুবাদ ঃ সালেহা চৌধুরী

হারিয়ে যাওয়া গল্প 
হাংরি জেনারেশনের তিন দিকপাল লেখকের দুটি গল্প ও একটি স্মৃতিকথা প্রকাশিত হলো--
বাসুদেব দাশগুপ্ত'র গল্প : রন্ধনশালা
রাধানাথ মণ্ডলের গল্প : চালে যখন কাক গলছে
অবনী ধর : স্মৃতি কথা


পাঠকের মুখোমুখি ঝুম্পা লাহিড়ী
সাক্ষাৎকার
ভাষান্তর : এমদাদ রহমান

লুতফুন নাহার লতা অভিনেত্রী ও আবৃত্তিকার। কবি ও গল্পকার। তিনি সময় পেলেই ভ্রমণে যান। সেই ভ্রমণকাহিনী লেখেন তাঁর মায়াময় গদ্যে।

লুতফুন নাহার লতার ভ্রমণকাহিনী 
অশ্রু ও ঘামে ভেজা রোমের গল্প


বাচিকশিল্পী ও গল্পকার সুদেষ্ণা দাশগুপ্ত কিছুদিন আগে বেড়িয়ে এসেছেন জঙ্গলে। সে ভ্রমণকাহিনী লিখেছেন অনেকটা গল্পের আঙ্গিকে। সে অর্থে এটা শুধু ভ্রমণ কাহিনী নয়--গল্পও বটে।


সুদেষ্ণা দাশগুপ্ত'র ভ্রমণ জার্নাল : জঙ্গলের পথে

তন্বী হালদারের গল্প : অজয় নামের নদ
মেহেদীউল্লাহ'র গল্প : এক খাটের সন্তান
অমিত ভট্টাচার্যের গল্প : সমুদ্রে
মুর্শিদা জামান'এর গল্প : বহিরাগত



অলোক বসুর পরিচিতি অভিনেতা, নাট্যকার, নাট্যপরিচালক ও আবৃত্তিকার হিসেবে। এখন গল্প লিখছেন। পড়ুন---

অলোক বসু'র গল্প 
শীত কিংবা ভাত অথবা নিতাইদের গল্প

গল্প পড়ুন--

মার্গারেট মিচেল'এর ধারাবাহিক উপন্যাস
যেদিন গেছে গেছে
ষোড়শ অধ্যায়
অনুবাদ : উৎপল দাশগুপ্ত



বই নিয়ে আলাপ

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন