বুধবার, ৩ জুন, ২০২০

গল্পপাঠ।। বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠ।। ১৪২৭ বঙ্গাব্দ।। মে-জুন।। ২০২০ খ্রিস্টাব্দ।। সংখ্যা ৭২

'আজীবন দীর্ঘ পরবাস' কথাটা শঙ্খ ঘোষের। বলছেন, “আমাদের সকলেরই মনের মধ্যে একটা জায়গা আছে, যেখানে আমরা একান্ত নিঃসঙ্গ।” বলছেন, আমাদের সামাজিক ব্যস্ততা থেকে যদি সরে আসি, একাকিত্বে “মনে হতে থাকে, কিছু যেন করার কথা ছিল কিন্তু করা হয় নি, কিছু যেন দেবার কথা ছিল দেওয়া হয় নি, কিছু যেন পাওয়ারই কথা ছিল তবু পাওয়া হয় নি।” শঙ্খ ঘোষের কথা অনুসরণে করে বলি, তারপর পৃথিবী জুড়ে যখন সন্ধ্যা নামে আমাদের মনে হয় দেরি হয়ে গেল, বড্ড দেরি হয়ে গেল। অশুভ অসুখে যখন বন্ধুরা অকাল প্রয়াত হয়, বলি, কেন নিয়তি এমন নিষ্ঠুর - আমার সঙ্গে তাকে আর দুটো দিন দিলে না। এরকম সময়ই এমন – ঘাতক ভাইরাস, ধ্বসমান অর্থনীতি, শ্রমজীবী মানুষের দীর্ঘ পথপরিক্রমা - শহর থেকে গ্রামে, গ্রাম থেকে শহরে, মৃতপ্রায় গণতন্ত্র, বর্ণবাদ ধর্মবাদ গোষ্ঠীবাদে বিবর্ণ বিভক্ত সমাজ – তার মধ্যে বলি, দেরি হয়ে গেল। এই মানুষদের আমরা আর ফিরে পাব না, এই সময় নষ্ট হল। 
এরমধ্যে হাতছাড়া হয়ে গেলেন দেবেশ রায়, পথের দিশারী হবার কাজে ইস্তফা দিয়ে চলে গেলেন আনিসুজ্জামান। আরো যে কত লেখক তাঁদের ভাল করে জানার আগেই জীবনের রেলগাড়ি থেকে লাফিয়ে নেমে পালিয়ে গেলেন, সবার নাম লিখতে গেল অতৃপ্তির বোঝা আরো বাড়বে। তবু এর মধ্যে – দেরি হবার আগে – আমরা গল্পের খনির কাজ করে যাই, কত মানুষ তাঁদের পরবাসের কথা লেখেন, সেই লেখা পাথর থেকে খোদাই করা লেখা, আমাদের গল্পের মিউজিয়ামে হয় তার ঠাঁই। এই দুর্যোগে আমরা সবাই পরবাসী, ঘরের কোনায় আত্মগোপন করেও। সেই পরবাসের সূত্র ধরে গল্পপাঠ এখন আয়োজন করছে অনলাইনে সাহিত্য আলোচনা, পাঠক শুনতে পারছেন গল্পকারের চিন্তা ভাবনা। এই ধরণের আলোচনা সারা পৃথিবীর বাংলাভাষীদের এক করছে, এই আলোচকরা যখন গল্পের কলকব্জা নিয়ে কথা বলছেন তখন স্থল ও জলের বিভাজন ছাড়িয়ে, এক বিষণ্ন অতীতকে পেছনে ফেলে, শ্রোতারা কোনো নতুন ভবিষ্যতের আশায় উদ্বেলিত হলেও হতে পারেন।

গল্পপাঠের পাতায় স্থান করে নিচ্ছে বহু অনুবাদ, আমাদের লেখকেরা আগ্রহী হয়ে উঠছেন অনুবাদে, তাতে অতীত ও বর্তমান দুই-ই ঠাঁই পাচ্ছে। রয়েছে রেবেকা মাকাই, জর্জ স্যান্ডার্স, জেনিফার জর্ডান, অ্যালিস ওয়াকারসহ বর্তমানের বেশ কয়েকটি মার্কিন গল্প, রয়েছে চিনুয়া আচেবে, ও’হেনরি, ওলগা তোকারচুক, ইসাবেল আয়েন্দে। এছাড়া রয়েছে গল্পকার ও নাট্যকার রুমা মোদকের পঞ্চাশতম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর গল্পের ওপর আলোচনা, কুলদা রায়ের ধারাবাহিক উপন্যাস ‘কহে জ্ঞানদাস’, উৎপল দাশগুপ্তের ধারাবাহিক অনুবাদে মার্গারেট মিচেলের Gone With the Wind। প্রতিবারের মতই বাংলাদেশ, ভারত ও এর বাইরে লেখা প্রচুর গল্পের সমাবেশ।
শুরু করেছিলাম শঙ্খ ঘোষের কথা দিয়ে। তার কথা দিয়েই শেষ করছি – “কোনো এক চির-আকাঙ্খার দিকে নিরন্তর এগোতে এগোতে চিরব্যর্থতাতেই ভরে থাকে মন, সমস্ত জীবন জুড়ে নিজেকে মনে হতে থাকে বিচ্ছিন্ন ও পরবাসী…এ হলো ব্যক্তির সঙ্গে জগতের এক পরবাস-সম্পর্ক। এ বোধে যে পৌঁছেছে, আজীবন তার দীর্ঘ পরবাস।” ঘাতক জীবাণু, রাজনৈতিক ও সামাজিক অস্থিরতা হয়তো এই বোধকে আরো গভীর করছে, কিন্তু পরবাসের এই বোধ ঋণাত্মক নয়, এই বোধ আত্মচেতনার। আমাদের এই গল্পগুলো সেই পরবাসেরই গল্প, পাঠক বা লেখক, যে যেখানে আছেন, তারা তাদের পরবাসেই থেকেই – দেরি হবার আগেই – গল্পপাঠের পাতায় লেখা পড়বেন ও লিখবেন। সেই অনুশীলনে যন্ত্রণাবিজয়ী উপলব্ধি হবে এই আমাদের আশা।

গল্পপাঠের এ সংখ্যার সম্পাদনা কাজে মূখ্য ভূমিকা পালন করেছেন কথাসাহিত্যিক নাহার তৃণা ও স্মৃতি ভদ্র।
শ্রদ্ধাঞ্জলি 
চিরায়ত গল্প: পুনর্পাঠ
ম্প্রতি লেখা দুটি গল্প
এ সময়ের উল্লেখযোগ্য গল্পকার অহনা বিশ্বাস থাকেন শান্তিনিকেতনে। লেখেন মৃদুস্বরে মর্মছোঁয়া গল্প। পুরুলিয়ার মানুষ বিমল লামার গল্প ভিন্নধারার বলে প্রয়াত দেবেশ রায়ের প্রীতিভাজন ছিলেন তিনি। বিশ্বদীপ চক্রবর্তী পশ্চিমবঙ্গের মানুষ হলেও বর্তমানে থাকেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রর মিশিগান অঙ্গরাজ্যে। তাঁর লেখায় বৈশ্বিক আবহ থাকে। আর সোমেন বসু থাকেন কোলকাতায়। একটি ওয়েবম্যাগাজিন সম্পাদনার সঙ্গে জড়িত। 
অহনা বিশ্বাসের গল্প : ভাগের মা
শাহনাজ মুন্নী ছোটো আকারে গল্প লেখেন। লেখেন নিটোল গল্প। গল্পে কোনো ভান থাকে না। মোহিত কামাল পেশায় মনোচিকিৎসক। ইতিমধ্যেই সাহিত্যে বাংলা একাডেমী পদক পেয়েছেন।  বিপ্লব বিশ্বাস অনুবাদক হিসেবে পরিচিত। সম্প্রতি  কানাডা থেকে বাংলাদেশে ফিরে ফিরে গিয়ে হেলাল মহিদীন গল্প লেখায় মনোযোগ দিয়েছে। 
শাহনাজ মুন্নীর গল্প : গুলটুশ

কথাসাহিত্যিক  রুমা মোদকে'র অর্ধশতক 
অভিনন্দন রুমা মোদক। 
বাংলাদেশের একটি মফস্বল শহর হবিগঞ্জের মানুষ রুমা মোদক। সেখান থেকেই পড়তে গিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে-- বাংলা সাহিত্য নিয়ে। পড়া শেষে ঢাকায় থাকেননি। ফিরে গিয়েছেন মফস্বলেই। করছেন শিক্ষকতা।
এর মধ্যে শুরু করেছিলেন কবিতা লেখা। কিন্তু বেছে নিয়েছেন গল্প ও নাটক। লিখছেন ছোটো গল্প। এখনো উপন্যাস লেখেননি। গড়েছেন হবিগঞ্জেই নাটকের দল। লিখছেন নাটক। করছেন নাটক পরিচালনা। ও অভিনয়। নাটকের ক্ষেত্রে ইতিমধ্যে পেয়েছেন বাংলাদেশের সবচেয়ে সম্মানিত পুরস্কার। হবিগঞ্জ থেকে নাটিক নিয়ে যাচ্ছেন দেশের নানা এলাকায়। প্রশংসিত হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গে। ত্রিপুরায়।
রাজধানীর বাইরে থেকে লেখেলেখির মূলস্রোতে নিজের কব্জির জোরে গুরুত্বপূর্ণ লেখক হিসেবে একটি শক্ত অবস্থান সৃষ্টি করে ফেলেছেন। সহজ নয় তার এই অভিযাত্রা।
রুমা মোদক অর্ধ শতক পেরিয়ে এলেন। আশা করছি তিনি জীবনে শতকে পৌঁছে যাবেন তাঁর চিন্তা, লেখা ও কাজ নিয়ে। 
এ সময়ে মার্কিন কথাসাহিত্যিকদের লেখা তিনটি গল্পের অনুবাদ প্রকাশিত হলো। গল্প তিনটি প্রকাশিত হয়েছে দি প্যারিস রিভিউ, দি নিউ ইয়র্কার পত্রিকা ও ব্লাক আমেরিকান শর্ট স্টোরিজ সংকলনে। 
রেবেকা মাক্কাই'এর গল্প :
একটা গল্প তোমার মেয়ের, একটা গল্প তোমার ছেলের
অনুবাদ : সুদেষ্ণা দাশগুপ্ত
---
জেনিফার জর্ডন'এর গল্প : ঘরণী
অনুবাদ :তৃপ্তি সান্ত্রা
---
জর্জ সন্ডার্স 'এর গল্প :  ভাসমান বস্তুকক্ষে শৃংখলাহীনতা
অনুবাদ : উৎপল দাশগুপ্ত
কয়েকটি অনুবাদ গল্প
একগুচ্ছ গল্প
রিপন হালদারে'র গল্প : পাখি গ্রাম
স্মৃতি ভদ্র, সাদিয়া সুলতানা ভিন্নধারার গল্প লেখেন। তাদের গল্পভাষা স্বাদু। মল্লিকা ধর কবি এবং বিজ্ঞানলেখক। আর সাঈদ আজাদ  পেশাগত কারণে গ্রাম ও মফস্বলের অভিজ্ঞতায় পুষ্ট।  তিনি ইতিমধ্যেই জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছেন। 



ও হেনরির মাস্টারপিস গল্প শেষপাতাটি বহুলপঠিত। কিন্তু গল্পটি বহুবারই পড়তে হয়। সঙ্গে তাঁর আরেকটি গল্পও প্রকাশিত হলো। ওলগা তোকাচুক এ বছরে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। ফলে তাঁর গল্প সম্বন্ধে কৌতুহল বেশি। সঙ্গে চিলির অন্যতম জাদুবাস্তববাদী কথাসাহিত্যিক ইসাবেল আয়েন্দের গল্পটিও অবশ্যপাঠ্য। 
ও হেনরির দুটি গল্প :  

অনুবাদ গল্পগুচ্ছ
---
---
তরুণ গল্পকার বিধান সাহা ও সৌনক দত্ত প্রধানত কবি। তাদের গল্পে কবিতার আবহ লক্ষ্যণীয়। কবিতা গল্পকে দূর্বল করে দেয়। এই তরুণ কবিদ্বয় আগামীতে গল্প লিখতে গিয়ে কবিতা থেকে বেরিয়ে আসবেন আশা করছি। গল্পে আখ্যানকেই প্রাধান্য দেবেন। আলভি আহমেদ মূলত চলচ্চিত্রকার। তিনি গল্পপাঠে প্রথম লিখলেন। 
আরো কয়েকটি গল্প 
১৯৪৭ সালে দ্য প্লেগ উপন্যাসটি প্রথম প্রকাশিত হয়। উপন্যাসটি লেখার যোগাড়যন্ত্র করেন ১৯৪১ সালে। ১৯৪২ সাল থেকে তিনি লিখতে শুরু করেন উপন্যাস।

উপন্যাসের স্থান ফরাসী শাসিত আলজেরিয়ার ওরান শহর। শহরটিতে অতিমারী আকারে প্লেগের আক্রমণ ঘটলে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। এই অবরুদ্ধ শহরে মানুষ ইঁদুরের মতো মরেছে।
এই উপন্যাসের পরিস্থিতি বর্তমানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বর্তমান পৃথিবীর সঙ্গে তুলনীয়। এই মাস্টারপিস উপন্যাসটি প্রথম খণ্ডের অনুবাদ প্রকাশিত হলো।

৬. মোহিত কামালের উপন্যাস নিয়ে আলোচনা : লুইপার কালসাপ
আলোচক : মিল্টিন বিশ্বাস
বিশেষ রচনা
ফেদেরিকো গার্সিয়া লোরকা স্মরণে :
লুতফুন নাহার লতা
প্রাচীণা প্রাহা ও কাফকার দীঘল ছায়া
 ফ্রানৎস কাফকার জন্মদিনে লুতফুন নাহার লতা   

মোহাম্মাদ আসাদুল্লাহ'র জার্নাল : পায়ে চলা মাছ

গল্পপাঠ লাইভ আড্ডা
কুলদা রায়ের মার্কেজের পুতুল গল্পটি নিয়ে আড্ডা
দীপেন ভট্টাচার্যের নিস্তার মোল্লার মহাভারত গল্পটি নিয়ে আড্ডা
কথাসাহিত্যিক অমর মিত্র ও স্বপ্নময় চক্রবর্তীর সঙ্গে আড্ডা
কথাসাহিত্যিক সাদিক হোসেনের সঙ্গে আড্ডা
কথাসাহিত্যিক বিশ্বদীপ চক্রবর্তীর সঙ্গে আড্ডা
কথাসাহিত্যিক রুমা মোদকের অর্ধ শতক উপলক্ষ্যে আড্ডা
কথা সাহিত্যিক মোজাফফর হোসেন ও স্বকৃত নোমানের আড্ডা

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন