বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০

সুমী সিকানদারের পাঠ প্রতিক্রিয়াঃ উপসংহারে অন্যসকাল

''উপসংহারে অন্যসকাল'' নামের যে বইটা দুইদিন ধরে আমার হাতে ঘুরছে , তার প্রচ্ছদে দেখা যায় থোকা থোকা বাড়ি , পর পর জানালা । বহুতলের সাথে পাল্লা দিতে চেয়ে হাল ছেড়ে দেয়া বৃক্ষ। কিছু শহুরে লাগামহীন উড়তে থাকা ধোঁয়া। 

কবি লেখক মেঘ অদিতির গল্পেও রয়েছে অসংখ্য জানালা। একেক জানালা দিয়ে ঢুকে মেঝেতে পা রাখলেই পাওয়া যায় আলাদা আলাদা আরশি , শতরঞ্জি , আনাজ । পাওয়া যায় ভিন্ন চেহারার ভিন্ন স্বভাবের মানুষ ।একান্ত নিজস্ব কাংক্ষিত সঙ্গম কিম্বা অনিবার্য বিচ্ছিন্নতা। চাওয়াটা আসলেই চাওয়া কি না সেটার কাটাকুটি করতে করতেই এগিয়ে গিয়েছে গল্পের পৃষ্ঠা। এগিয়ে নিয়েছে মেঘ অদিতি তাঁর সাথে পাঠকদেরও।


কেউ তাকে গদ্য লিখতে পারেন না বলতে চেয়ে এতটাই বলিষ্ঠ করেছেন যে তিনি বরাবর শান্ত লেখক এবং এখন তুখোড় গল্পকার হয়েছেন। তাঁর এই বইটি প্রকাশ করেছে বৈভাষিক (ভারত) এবং প্রচ্ছদ করেছেন নবেন্দু সেনগুপ্ত ।

বইটিতে গল্পের আবাস পনেরোটি। কিছু গল্প ওয়েবে পড়েছি এবং তখনই বুঝতে পারছিলাম তার কথা বলার ঢংটি পৃথক। বিষয় নির্বাচন বহুমাত্রিক।

ভাললাগা গল্প ''অতল ভ্রমণে''
ভালো লাগছে ''আতর ছড়ানো সে বিকেলের কথা।''
''পাহাড়বা কনসেনট্রেশেন ক্যম্প '' ভিন্ন মাত্রার প্রবাহ।
ভালো লাগছে ''আমাদের বিবাহকথন''। এভাবেও বিবাহ হয় ।
''সময়গ্রন্থি , এক অনন্য সূর্য'' মুক্তিযুদ্ধের এক চাক্ষুষ দলিল।
''দহন পেরিয়ে '' নিধির জন্য সকল কষ্ট । হয়তো সে সুজনকে সুযোগ দিলে পারতো।
''দ্য ব্রোকেন কলাম'' মনে করায় রীতা ম্রো কে।

ভাল লাগছে ''রাত ডায়রির পাতা থেকে ''।রাত গলে গলে আমার গাল বেয়ে বেয়ে নেমে যাচ্ছে।
'If life does;t kill yoy, emptiness will, And I QUIT''। আমি বড় আচ্ছন্ন হয়েছি এই গল্পের সাথে । এই বয়েসি ছেলের সাথে মায়ের মানসিক দুরত্ব মায়ের আন্তরিক চেষ্টা । বিশেষ করে একা মায়ের অভিভাবকত্ব ছেলের সাথে সব বিষয়ে মানিয়ে নেয়া অতি দুরূহ। মা ও ছেলে একে অপরের ওপর যেমন নির্ভর করে তেমন অভিযোগ সমানে। যত ভালোবাসা ততটাই জেনারেশন গ্যাপ। ছেলের কাছে মনে হয় এটা স্বাভাবিক মায়ের কাছে লিমিট ক্রস। মা'ও অনেক সময় ছেলে এডলোসেন্ট পিরিয়ড বুঝতে চান না। একা একা আর কত ! ছেলেও নিজের ত্রুটি দেখার মতো ম্যাচিওর নয়। ভাবে মা তাকে ট্রাস্ট করে না ভালবাসে না। গল্পের শুরুতে একেবারেই বোঝা যায় না পরিনতি।

শব্দের সাথে অনায়াস বন্ধুত্ব তৈরি হলে তার সাথে আড়ি নেয়া যায় না। একের পর এক শব্দের বলয় তৈরী হতে থাকে মেঘেঅদিতির কি- বোর্ডে।

আমি অনেক সময় দেখেছি রিভিউ লেখার নামে লেখক কে ছাপিয়ে নিজের জ্ঞান গরিমা এবং মুন্সিয়ানার বিজ্ঞাপনে অনেকে ক্ষিপ্ত । এতে করে মূল লেখক লেখাগুলোই আড়ালে পড়ে যায়।
তাই আমি রিভিউ নয় আমার ভিউটুকুওই জানাচ্ছি।

এই বইয়ে আমার সবচেয়ে স্মার্ট গল্প লেগেছে সেটাই যেটা মেঘ তাঁর বইয়ের নামকরণ করেছেন ।অর্থাৎ 'উপসংহারে অন্য সকাল। ''
এত সুন্দর ঠাসবুনটের এই গল্পটার ঘর বারান্দা আমার এত ভাললেগেছে ! স্মুদলি পড়িয়ে নিয়ে গেছে। এতটুকু সুর কাটেনি , এবং সবচেয়ে বড় যে বিষয় গল্পের গভীরতা এবং পাঠকের আগাম বুঝে না ফেলা , এখনেই মেঘের পড়াবার প্ররোচনা।

মিলি রুপমের বন্ধুত্বটুকু নিছক বন্ধুত্বই । যতক্ষণ তারা আঁকে পারিবারিক যন্ত্রণা থেকে মিলি একদম সরে থাকে। মগ্ন থাকে। পুরোনো আঁকার অভ্যাসে ফিরতে পেরে আনন্দিত থাকে। দাম্পত্যের একঘেয়েমি কাটাতে বাড়িতে আসে মেয়ের বয়েসি চন্দ্রা। যার মা মিলির বাসায় সহযোগিতার কাজ করতো। কোনও এক শীতে মা মারা গেলে মিলি নিজেই চন্দ্রাকে নিয়ে আসে নিজের ডেরায়। তার আর পরাগের মাপা কথার জীবনে কিছু বাড়তি কথা আসুক। যেহেতু পরাগ নামটিকে তাঁর জীবনের সাথে বয়ে নিয়ে চলতে হচ্ছে ।যে সম্পর্কে আর যাই থাকুক প্রেম নেই। পরাগের জীবনে আছে অন্য কেউ।

কিন্তু কারো কারো জীবন কোথাও গিয়েই নোঙ্গর পায় না। অদ্ভুত ভাবে রুপম কিম্বা পরাগ এরা সুযোগের অভাবে ভালোমানুষ সেজে থাকে । কোনও অসতর্কতায় তাদের মুখোশ ন্যাক্কারজনক ভাবেই মিলির সামনে ক্রিস্টাল ক্লিয়ার হয়ে ধরা পড়ে।

আর কোন গল্প না বলি। সবাই বইটি কিনুন হাতে করে পড়ুন। এই গল্লটা পড়ার পর আমার মন আর কোনও কিছুতেই টানছিলো না। আমি নিজেই মিলির মতো স্থানূ হয়ে গেছিলাম।

মেঘ তার মতো করেই গল্প লিখেছে। অপ্রচলিত ধারার এইলেখাগুলো তার সময় কে আলাদা ভাবে চেনাবে সন্দেহ নেই।।গদ্যপদ্যের সীমা রেখা মুছে দিয়ে সে একজন সাহসী লেখক সাহসী মানুষ এটাই আমাদের পাঠকের প্রাপ্তি।

এই গল্পের বই ছাড়াও বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত মেঘে অদিতির বইয়ের সংখ্যা ৬টি। এদের মধ্যে আছে ঃ
জল্ডুমুরের ঘুম, (কাব্যগ্রন্থ) ২০১২
অস্পষ্ট আলোয় ঘোড়া (ছোট গল্প ) ২০১৩
হে অদৃশ্যতা হে অনিশ্চিতি (কবিতা )২০১৪
সময় শূণ্যতার বায়োস্কোপ ( গদ্য গল্প ) ২০১৫
প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত (কবিতা )২০১৬
পাখি সিম্ফনি ক্যালাইডোস্কোপ (কবিতা ) ২০১৮

আমি সত্যি গৎ বাঁধা রিভিউ পারি না মেঘ। এখানে রইলো তোমার এবং আমাদের বন্ধুদের জন্য আমার মনে ও চোখে ধরা পড়া কিছু ভিউ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন