মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০১৫

রিটন খান : ২০১৫ সালে পড়া গল্পের সালতামামি

গল্পপাঠ :১
২০১৫ সালে কত সংখ্যক গল্প পড়েছেন? 
রিটন খান: ১
বেশি পড়ি নি। আমি প্রবন্ধ বেশি পড়ি। তবে সব মিলিয়ে ৮/১০ টা ছোটগল্প পড়া হয়েছে। 

গল্পপাঠ : ২
কোন কোন মাধ্যম থেকে গল্পগুলো পড়েছেন? 
রিটন খান: 
মুদ্রিত বই।

গল্পপাঠ : ৩
 কোন কোন গল্পকারের গল্প পড়েছেন?
রিটন খান: 
মুঈনুল আহসান সাবের, নাসরিন জাহান, উম্মে মুসলিমা সহ আরো কয়েকজনের। 


গল্পপাঠ : ৪
এর মধ্যে ভালো লাগার গল্পগুলোর কয়েকটি নাম করুন। গল্পগুলো ভালো হয়ে উঠেছে কি কি কারণে সেগুলো উল্লেখ করুন। 
রিটন খান: ৪
পরম্পরা, আলো আছে আলো নেই, লাভ, ফেরা, মুখোশ। গল্পগুলি উম্মে মুসলিমা, সাবের, আর নাসরিন জাহানের। 

গল্পপাঠ : ৫
সেরা গল্পটি নিয়ে আপনার পর্যবেক্ষণ বলুন। 
রিটন খান : ৫
পরম্পরা - উম্মে মুসলিমা। এই গল্পে একটা মোচড় আছে ইংরেজিতে যাকে আমরা টুইস্ট বলে জানি। পর্যবেক্ষন বললে সেই টুইস্টটা আর থাকবে না। যদি এই লেখা কেউ পড়েন তাহলে অনুরোধ করবো গল্পটা পড়ে দেখতে। 

গল্পপাঠ :৬
আপনি কি মনে করেন—এই গল্পগুলো বাংলাদেশের চিরায়ত গল্পগুলোর সমতুল্য বা তাদেরকে অতিক্রম করতে সক্ষম হয়েছে? 
রিটন খান: ৬
চিরায়ত গল্পের সাথে এখনকার গল্পের অনেক ব্যবধান। এখনকার গল্পে বিষয়বস্তুর বৈচিত্র প্রচুর। তবে লেখকের মানের তারতম্য অনেক। তারাপদ রায়, কিংবা বুদ্ধদেব বসুর মত গল্পকার আমরা এখন আর দেখতে পাই না। 

গল্পপাঠ : ৭
বিদেশি গল্পের সঙ্গে এ গল্পগুলোর মানকে কিভাবে তুলনা করবেন?
রিটন খান:৭
 বিদেশি গল্প আর দেশি গল্পের মধ্যে মৌলিক কিছু পার্থক্য আছে তাই আমি এই দুটিকে এক করে কখনো বিচার করি না। পার্থক্যটা সংস্কৃতির।

২টি মন্তব্য:

  1. আরেকটু বেশি বলতে পারতেন। আপনি তো নিজে পড়েন এবং অন্যকে পড়তে উদ্ধুদ্ধ করেন।

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আমি তো জানতাম না, এটা এখানে দেওয়া হবে। কুলদা দা এমনি জানতে চাইলেন তাই বলে দিলাম।

      মুছুন