বৃহস্পতিবার, ২৪ মে, ২০১৮

সুমী সিকানদারে'র ছুটির লেখা : হারিয়ে যাওয়া

প্রাপ্তি কে হারিয়েছিলাম দুইবার। প্রথমবার নিউ মার্কেটে। তার বয়স তখন দুই /আড়াই।কুট কুট করে হাঁটে আর যে কেউ কোলে নিতে চাইলেই লাফ দিয়ে তার কোলে চলে যায়। তার এই স্বভাব নিয়ে উটকো বিপদ হতো।

নিউ মার্কেটে সেদিন কিছু কুশন কভার কিনবো । দোকানদার ছেলেটা বললো আরেকটা শো রুম আছে সামনেই, সেখানে একটু যেতে হবে। 

তো আমার মেয়ে আমার আঙ্গুল ধরে গুট গুট হাঁটে । কিন্তু হাঁটায় তার মন নেই। এক দুই পা হেঁটেই উনি থমকে দাঁড়িয়ে চারিদিকের পাখি ,বিড়াল সব কিছু দেখে। 

দেরি হচ্ছে দেখে দোকানের ছেলেটা বললো, আমি মামনিকে কোলে নেই আপা, আমার সাথে সাথে আসেন।আমি বললাম না না আমি কোলে নিচ্ছি। কিন্তু প্রাপ্তি তো তখন আমাকে চিনবেই না। লাফ দিয়ে দোকানদার ছেলেটার কোলে চলে গেলো।

দ্রুত হাটছি, সামনে সেই ছেলে তার কোলে আমার মেয়ে সব ঠিক ঠাক । দুই সেকেন্ডের মধ্যেই দেখি আমার সামনে সেই দোকানদার ছেলেও নেই আমার মেয়েও নেই।নেই তো নেই। কোত্থাও কেউ নেই।

জীবনে এরকম পরিস্থিতিতে পড়িনি। কি করতে হবে জানিনা।

অনেক জোরে চিৎকার করতে চাইলাম, কোন শব্দ বের হলো না। লোকজন জড়ো হয়ে গেছে তারা জিজ্ঞেস করছে বাচ্চার নাম কি। সে কি তার নাম বলতে পারে? আমি চুপ হয়ে গেছি। কিছু শুনতে পাচ্ছিনা।

ঠিক কাঁদছিলাম না, তবে চোখ থেকে ক্রমাগত জল পড়ছে। দৌড়াতে শুরু করলাম । 'ভাই আমার মেয়েটাকে খুঁজে দেন। আমার বাচ্চা তো নিজের নাম বলতে জানে না'। কে যেন বললো '' আপা তিনতলায় চলে যান সেখানে মাইকে বাচ্চার বিবরণ দেন নিঁখোজ সংবাদ বলে। ভাগ্য ভালো থাকলে পাবেন।'' 

হায়রে আমার মেয়ে নিখোঁজ !

দুনিয়াতে তখন কাউকে মনে নেই কিচ্ছু মনে নেই। আমি হুড়মুড় করে সিড়ি ভাঙ্গতে ভাঙ্গতে তিনতলায় উঠছি। দোতলায় উঠতেই কারা যেন চিৎকার করছে '' ও আপা ও আপা, আপনার বাচ্চা পাওয়া গেছে। আপা নেমে আসেন আপনার বাচ্চা ।''

আমার আর নেমে আসার ক্ষমতা নেই সিড়িতেই বসে পড়েছি। দূর থেকে মাথায় ঝুঁটি করা আমার মেয়ে দেখা যায়। সে মহাখুশী দুইহাত একত্র করে হাতে তালি দিতে দিতে কি যেন বক বক করছে দোকানদারের সাথেই। তারা জাস্ট পাশের গলিতেই ছিলো আমি বুঝতে পারিনি। দোকানী ছেলেটা খুব লজ্জা পেলো।

প্রাপ্তি আজ কত কনফিডেন্ট , ভীতু বাচ্চা বদলে গেছে আমার। একা একা নিজের ছাত্রী পর্যায়ের কঠিন দায়িত্ব নিয়েছে। স্কাইপে নিজেকে দেখাচ্ছে ''এই দেখো মা আমি ঠিক আছি। এই যে মা ঘর গুছিয়েছি। এসো আজ তোমার সাথে রাঁধবো। ঐ গানটার অন্তরা ভুলে গেছি জলদি গাও। মা তুমি লাইভ অন করে ঘুমাচ্ছো কেন?''

আমি প্রাণ ভরে দোয়া করেছিলাম সেদিন সেই দোকানদার ছেলেটার জন্য । সে যদি ছেলেটা অসৎ হতো নিউমার্কেটের আরেক দিক দিয়ে মেয়ে কোলে করে নিয়ে চলে যেতো। এই মা'টাকে কে তখন মা বলে ডাকতো বাবা। আর তো কোন সম্পদ ছিলোনা। 

পরের বার এই মেয়ে ফের কোথায় হারিয়েছিলাম সেটা আরেক দিন বলবো ।।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন