বুধবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৪

ভালো গল্প লেখার কৌশল

সাজেদা হক

গল্পের প্লট সত্যিই একটি বড় সমস্যা।প্লটই বলে দেবে আপনার গল্পটা আসলে কিসের উপর ভিত্তি করে তৈরি। এমন অনেক ভালো ভালো প্লট আছে যার উদাহরণ দেয়া হয় যুগে যুগে, আবার এমনও প্লট আছে যেগুলো উদাহরণ দেয়া হয়, তবে খারাপ অর্থে। সুতরাং যে সাহিত্যই রচনা করেন না কেন, সেটা যেনো আপনাকে, আপনার পরিচয়কে প্রতিনিধিত্ব করে। আপনার মর্যাদাকে বহুগুন বাড়িয়ে দেয়। তাই একটি ইউনিক প্লট তৈরি করাটা লেখকের জন্য একইসাথে অত্যন্ত গৌরবের এবং কষ্টসাধ্যের। যাই হোক এবার আমরা একটু জানবো কিভাবে একটা নিজস্ব গল্পের প্লট তৈরি করা যায়।


আসুন কি ধরণের গল্পগুলো সাধারণত হয়, তার একটা তালিকা করি :

ছেলে-মেয়েতে বন্ধুত্ব
খারাপ ছেলে-ভালো মেয়ের প্রেম
শিক্ষক-ছাত্রের প্রেম
সর্বসম্মতিতে বিয়ে

....হ্যা, ঠিক ধরেছেন, এভাবেই তালিকাটা করতে থাকুন।পেয়ে যাবেন আপনি আপনার কাঙ্খিত গল্পের ইউনিক প্লট।


তারপরও পল্ট তৈরির কিছু কৌশল আছে। এখানে পাঁচটি কৌশলের কথা আলোচনা করা হলো।


১. 
অপ্রাসঙ্গিক দুটি বিষয়কে মিলিয়ে একটি প্লট তৈরি করুন। 
কিংবা একদম বিপরীতমূখী দুটি ভিন্ন ভিন্ন ঘটনাকে একীভূত করে একটি সাহিত্য নির্মাণ করা। সেটা হতে পারে কারো জন্মদিন, ভালোবাসা। দুটি বিষয় ভিন্ন কিন্তু আপনি চাইলেই একীভূত করতে পারেন! কি, পারেন তো?


২. 
গল্পের রুপান্তরিত গল্প তৈরি করুন। 
সোজা সাপটা কথা হলো যে গল্পগুলো এতোদিন ধরে মানুষ পড়ে এসেছে, সেগুলোর ভবিষ্যত ভার্সন তৈরি করতে পারেন। যেমন ধরেন আমাদের ডালিম কুমার। সেই যে সাত সমুদ্র তের নদী পেরিয়ে রাজকন্যাকে উদ্বার করলো, তারপর তার কি হলো তা আজো আমরা জানি না। জানান না আপনি!

যেমন করে থেমে নেই সিনডারেলার অভিযান। হ্যামলেট তো সিনডারেলার পরেও কল্পকাহিনী লিখেছেন। সে কল্পকাহিনীগুলোও কিন্তু বেশ সমাদৃত। দ্য লায়ন কিং, রোমিও জুলিয়েট কিন্তু মুল গল্পেরই রুপান্তার। সিনডারেলার কাহিনীর উপর ভর করেই কিন্তু লেখক বেল ওয়াটসন লিখেছিলেন, কল মি এলা সাহিত্যটি। সেটিও জনপ্রিয়তা পেয়েছে বেশ।


৩. 
চিন্তার উম্মেষ ঘটান
মনের মধ্যে গুড় গুড় করছে গল্পের প্লট, দ্রুত লিখে ফেলুন। একটা তালিকা করুন। কি কি বিষয় হতে পারে। প্রেম, বিরহ, ভালোবাসা, দ্বন্দ্ব, প্রতিশোধ, প্রতিবাদ, গাছ, পাখি, ঘাস, ফুল, ফল, বাতাস, স্বভাব, অন্যায়, অপরাধ, পাহাড়, নদী, সাগর, মাছ, মতস কন্যা, জীবন, জীবিকা- যা মনে আসে আপনার তার একটা তালিকা তৈরি করুন। তারপর ভাবুন কোনটা সবচেয়ে আকর্ষক!

৪. 
গল্পের শুরু এবং শেষ চিন্তা করুন
শুরুতেই গল্পের শুর এবং শেষ চিন্তা করে রাখুন। মাঝে কি হবে তা নিয়ে এখনি ভাবার দরকার নেই। শুরু আর শেষ ভাবুন। এবার দুটি বিষয়কে জোড়া দিতে অন্যান্য চরিত্র বা উপাদানগুলো যোগ করুন। যেমন ধরেন শুরু করতে পারেন কারো মৃত্যু দিয়ে। অস্বাভাবিক মৃত্যু হতে পারে সেটি। কিংবা স্বাভাবিক মৃত্যুও হতে পারে। ফলে এতিম হয়ে গেলো আপনার প্রধান চরিত্র। কিংবা খুনী হয়ে উঠলো আপনার প্রধান চরিত্র। এবার ইচ্ছামতো এগিয়ে যান। যোগ করুন, আরো চরিত্র, বৈশিষ্ট্য, স্থান, কাল। শেষ এমনভাবে করুণ যেনো পাঠক কোনোভাবেই আপনার উদ্দেশ্যকে আগে থেকেই অনুমান করতে না পারেন।



৫. 
ভালোবাসা-ঘৃনা কৌশল
সবচেয়ে এবং সবসময় কার্যকর একটি কৌশল। ভালোবাসা আর ঘৃণাকে আপনার সাহিত্যের প্রধান চরিত্র বানান। তাতে যোগ করুণ ব্যতিক্রমী অবস্থান, নতুন চিন্তা আর আপনার চৌকষ অভিজ্ঞতা। দেখবেন পাঠক মুগ্ধ হয়ে পড়বে আপনার বই।



৪টি মন্তব্য:

  1. এরকম কৌশল মেনে কে কবে গল্পকার হয়ে উঠেছেন যদি জানতে পারতাম তবে ভাল লাগতো।

    উত্তরমুছুন
  2. Kuloda Roy
    এই রীতি মেনে গল্প লেখার দরকার নেই অনিন্দ্য। কিন্তু ক্রাফট বা রীতিগুলো জানার দরকার আছে। এটা জানা থাকলে রীতি ভাঙ্গাটাও সহজ হয়।
    আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি যে কোনো শিল্পের মতই গল্পেরও সৃজন রীতি আছে। যিনি গান করেন তিনি সপ্তস্বর শেখেন। রাগ-রাগিনীর চর্চা করেন। এটা ছাড়া ভালো শিল্পী হওয়া যায় না। প্রতিভার সঙ্গে সাধন প্রণালীও থাকতে হয়। আমি তো মনে করি আমাদের দেশের গল্পকারদের বড় দুর্বলতা হল গল্পকাররা গল্পের ক্রাফটগুলো সম্পর্কে জানা ও বোঝার চেষ্টাই করেন না। ফলে উল্লেখ করার মত গল্প পাই না।
    সাজেদা হক সেই কাজটিই করছেন। কাজটি নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ।
    -----------------------------------------------------------------------------------------------
    December 16 at 12:17pm · Edited · Like · 5

    Pintu Rahman আমি ভাই রীতি-নীতি কিছু জানিনা । যা বুঝি তাই লিখি ।
    -------------------------------------------------------------------------------------
    December 16 at 9:29am · Like

    Kuloda Roy পিন্টু রহমান, আমি আপনার গল্প পড়েছি। আমার মনে হয়েছে আপনি গল্প লিখতে চান। কিন্তু গল্প লেখার কায়দাটি আপনার হাতে নেই। ফলে আপনার গল্প শেষ পর্যন্ত পরিণত হয়ে উঠছে না। এর জন্য দায়ী, আমি মনে করি, গল্প লেখার ক্রাফট বিষয়ে আপনার উদাসীনতা।
    আপনি রাগ করবেন না। আমার পর্যবেক্ষণটি আমি বললাম।
    December 16 at 9:44am · Like · 1
    ----------------------------------------------------------------------------------------
    Mojaffor Hossain আমি কুলদা রায়ের সঙ্গে একমত। বাংলা সাহিত্য তো বটেই, সমগ্র বিশ্বসাহিত্য বহুদূর এগিয়ে গেছে। লক্ষাধিক গল্প হয়ত লেখা হয়ে গেছে। তাই এখন আর একেবারে কিছু না জেনে মনের আনন্দে লেখার সময় না। কিছু জেনে লেখা ভাল। এতে আর চর্চিত বিষয় বা স্টাইল চলে আসে না। পুরনো জিনিস বার বার লেখার কোনো মানে হয় না। বরং সেগুলো বার বার পড়াই ভাল। আর রীতিনীতি না জেনে লিখলেও চলে। তবে সেটি না জানা গর্বের কিছু না। আধুনিক লেখকদের বরং সেগুলো জেনে একটু সচেতন হয়ে লেখাই ভাল বলে আমি মনে করি। আর এক্ষেত্রে আমি দেখেছি, রীতিনীতিকে তারাই অবজ্ঞা করেন যারা পড়ার চেয়ে লিখতে বেশি পছন্দ করেন। দু:খিত, বিষয়টি কেউ ব্যক্তিগতভাবে নেবেন না।
    December 16 at 10:13am · Edited · Unlike · 8
    ===================================================
    Shajahan Shamim যে কোন শিল্পে দুটো বিষয় থাকে। ০১) বিষয়বস্তু ও ০২) আঙ্গিক। বিষয়বস্তু হয়তো শেখানো যায় না। কিন্তু আঙ্গিক শেখানো যায়। বিষয়বস্তুর মতো আঙ্গিকও গুরুত্বপূর্ণ। শিল্প চর্চার চরম মাত্রায় পৌছতে হলে আঙ্গিক নিয়ে পড়াশোনা করতেই হয়। শিখতেই হয়। যারা এই পড়াশোনা করে না, তারা পুরোনো রীতিতে শিল্প চর্চা করে যায়।
    December 16 at 10:21am · Like · 4
    --------------------------------------------------------------------------------
    Masud Ahmad চমৎকার বলেছেন! Mojaffor Hossain
    December 16 at 10:42am · Like · 1


    Pintu Rahman কুলদা, মতামতের জন্য ধন্যবাদ । এ বিষয়ে আমি জানতে আগ্রহী ।

    উত্তরমুছুন
  3. ধন্যবাদ। আমি গল্প লিখি না। পারি না বলে। তবে পড়ি। সাজেদা আপার লিখাটি নতুন গল্প লেখকদের জন্য দরকারীই বলব। ধন্যবাদ আপনাকে। চাই গল্প বেরিয়ে আসুক চলতি সময়ের রসধারাল জিজ্ঞাস্য নিয়ে, দ্বন্দ্বচ্ছ্বেদে যে কথা বলতে হবে তা নিয়ে, প্রয়োজনে। সাহিত্যমানে। মতামতগুলো চমৎকার

    উত্তরমুছুন
  4. ইদানীং গল্প পড়া আমার খুব ভাল লাগতেছে।
    ধন্যবাদ আপনাকে!

    উত্তরমুছুন